শ্যামনগরে জলবায়ু পরিবর্তন ও দুর্যোগ বিষয়ে নবীন-প্রবীণের গল্পের আসর

১৯৮৮-এর প্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড়ের কথা মনে হলে সমস্ত শরীর শিউরে উঠে। আমি সেই ঝড়ের দিনে সুন্দরবনে নদীতে মাছ ধরার জন্য নৌকায় অবস্থান করছিলাম। ঈশ্বরের কৃপায় জীবন বাজি রেখে পরদিন বাড়ি আসি। বাড়ি এসে দেখলাম আমার বাড়ি আমি চিনতে পারছি না। ঠিক এভাবে আইলার সময়ে এমন রূপ দেখেছি।

এসব বাস্তব চিত্রের বর্ণনা দিয়ে যাচ্ছিলেন সত্তর এর উপরে বয়স্ক ব্যক্তি শ্যামনগর উপজেলার কাশিমাড়ী ইউপির কাশিমাড়ী গ্রামের বাসিন্দা শাসছুর রহমান।

শুক্রবার (২২ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৪টা ৩০ মিনিটে সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলায় কাশিমাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বরে জলবায়ু পরিবর্তন ও দুর্যোগ বিষয়ে নবীন-প্রবীণ ব্যক্তিদের অংশগ্রহণে গল্পের আসরে এসব কথা বলছিলেন।

এ সময় প্রবীণ ব্যক্তি হিসাবে আরও কথা বলেন শেখ লুৎফর রহমান, দাউদ আলী, আঃ রহমান।

নবীন ব্যক্তি রাবেয়া খাতুন, সাদি, ইমরান হোসেন বলেন জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য যে সকল দেশ দায়ী তাদের কাছে আমাদের ক্ষতিপূরণ চাওয়া দরকার। নবীনরা প্রবীণদের বিভিন্ন অভিজ্ঞতা কাজে লাগানোর জন্য সবাইকে আহ্বান জানান।

যুব সংগঠন সিডিও ইয়ুথ টিম, এস.এস.এসটি ও কোস্টাল ইয়ুথ নেটওয়ার্ক জলবায়ু পরিবর্তন ও দুর্যোগ বিষয়ে গল্পের আসরের আয়োজন করে।

উপজেলা জনসংগঠন সমন্বয় কমিটির সভাপতি শেখ সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন বরসা গাইন, সিডিও ইয়ুথ টিম উপজেলা আহবায়ক কমিটির সদস্য হাফিজুর রহমান, কোস্টাল ইয়ুথ নেটওয়ার্ক এর সদস্য আলতাফ হোসেন, বারসিক কর্মকতা বিশ্বজিৎ মন্ডল প্রমুখ।

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন কোস্টাল ইয়ুথ নেটওয়ার্কের সভাপতি রাইসুল ইসলাম।

শেয়ার করুন:

সম্পর্কিত খবর